L O A D I N G

IELTS মডিউলের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ হল রিডিং বিভাগ।

 

মডিউলঃ রিডিং
সময়ঃ১ ঘণ্টা
বিভাগঃ৩ টি
প্রশ্নঃ৪০ টি
নম্বরঃপ্রতিটি সঠিক উত্তর প্রতি ১ নম্বর। সর্বোচ্চ নাম্বার দেওয়া হয় স্কোর ভিত্তিতে

 

IELTS মডিউলের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ হল রিডিং বিভাগ। এই বিভাগ তিনটি বিভাগের সমন্বয়ে গঠিত একটি সতন্ত্র বিভাগ। তিনটি সেকশনে সর্বমোট ৪০ টি প্রশ্ন থাকে। ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন বই, ম্যাগাজিন, সংবাদপত্র থেকে  কিছু অংশ তুলে দেয়া হয়  এবং এখান থেকে পড়ে সঠিক উত্তর খুঁজে বের করতে হয়। শুনতে সোজা লাগলেও,  মোট ১ ঘণ্টা সময় এবং এর মধ্যে ছাত্রছাত্রীদের ৪০ টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। এই প্রশ্নগুলো বিভিন্ন ধরনের হতে পারে, যার কয়েকটি উদাহরণ নিচে দেওয়া হল –

উপরের প্রশ্নটিতে ৫ টি ইউনিভার্সিটির কথা বলা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিভার্সিটির hostel accomodetion এর কয়েকটি শর্ত বলা হয়েছে, যেমন GWYN House ইউনিভার্সিটির ক্ষেত্রে বলা হয়েছে –

১. সিঙ্গেল রুম

২. কমন বাথরুম

৩. ফুল বোর্ডিং

৪. কো এডুকেশন

৫. শেয়ারড কিচেন

একইরকম ভাবে বাকি চারটে ইউনিভার্সিটির ক্ষেত্রেও কয়েকটি শর্ত দেওয়া রয়েছে।

এবারে ৬ টি প্রশ্ন করা হয়েছে যার উত্তর লুকিয়ে রয়েছে এই ৫ টি ইউনিভার্সিটির শর্তের ক্ষেত্রে। যেমন ১ নং প্রশ্নে বলা হয়েছে –

আপনি যদি একজন প্রথম বর্ষের পুরুষ শিক্ষার্থী হন, যিনি সিঙ্গেল রুম চান, ইউনিভার্সিটির কাছে থাকতে চান এবং লন্ড্রি সার্ভিস চান, তাহলে আপনার ক্ষেত্রে উপরক্ত ৫ টি ইউনিভার্সিটির মধ্যে কোন ইউনিভারসিটি সবচাইতে উপযোগী হবে?

রিডিং বিভাগে সাধারণত এই ধরনের প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। উত্তর লুকিয়ে থাকে প্রশ্নের মধ্যেই। তবে যেহেতু সময় কম থাকে এবং উত্তর খোঁজবার জন্য খুব মনোযোগ দিয়ে পুরটা পড়তে হয়, তাই উপযুক্ত চর্চা না থাকলে, পরীক্ষার্থীদের মাঝে মধ্যেই মুশকিলে পড়তে হয়। এই বিভাগে আপনার মনঃসংযোগ এবং ধৈর্য যাচাই করা হয়।

রিডিং বিভাগটি কিন্তু এমনিতে সোজাই। বাড়িতে নিয়মিত চর্চা করলে খুব সহজেই এই বিভাগে সফল হওয়া যায়।
রিডিং বিভাগে নিজেকে প্রস্তুত করবার জন্য যা যা করবেন –  

১. নিয়মিত পড়বার অভ্যেসঃ নিয়মিত ইংরেজি খবরের কাগজ বা গল্পের বই পড়বার অভ্যেস করুন। পড়বার skill উন্নত করতে এর চাইতে ভালো উপায় আর কিছু নেই।

২. মনে রাখবার চেষ্টা করুনঃ যেটা পড়লেন সেটা মনে রাখবার চেষ্টা করুন। খুব ভালো হয়, যদি পড়ার কয়েক ঘণ্টা বাদে যে বিষয়টি পড়েছেন, সেটির মুল বিষয়বস্তু গুলো পয়েন্ট করে লিখতে পারেন। না দেখে লেখবার চেষ্টা করুন। নিজে নিজে যাচাই করুন আপনি কতটা মনে রাখতে পারছেন।

৩. পাজেল প্রাকটিসঃ অনলাইনে এই ধরনের বিভিন্ন পাজেল বা মেমরি গেম রয়েছে, অবসর সময়ে সেগুলো খেলুন। ভবিষ্যতে আমরাও এই ধরনের কয়েকটি পাজেল গেম দেওয়ার চেষ্টা করব।

৪. সময়ের হিসাব রাখুনঃ পড়বার সময় সময়ের হিসাব রেখে পড়ুন। ধরুন আপনি আপনি একটি গল্পের ২ – ৩ টি প্যাসেজ পড়তে চলেছেন। প্রথমে দেখেনিন মোট কয়টি ওয়ার্ড আছে এবং হিসাব রাখুন ওই কয়টি ওয়ার্ড পড়তে আপনার কতটা সময় লাগছে। আপনার লক্ষ হবে ধিরে ধিরে কম সময়ে বেশী সংখ্যক ওয়ার্ড পড়া। কারন মাথায় রাখবেন, রিডিং বিভাগে সময় কিন্তু একটি মুল্যবান জিনিস।

আজকে এখানেই শেষ করলাম। তবে ভবিষ্যতে রিডিং বিভাগ নিয়ে আমরা অবশ্যই আরও আলোচনা করব। আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদেরকে লিখে জানান।

শভ কামনা রইল।
ধন্যবাদ।

Leave a Comment